মাথা ব্যাথা হলে করণীয় ২০২৩ । মাথা ব্যাথার ঘরোয়া চিকিৎসা দেখে নিন

মাথার যার আছে ব্যাথাও তারই থাকে। দেশের ১০০ জন মানুষের উপর সমীক্ষা চালালে দেখা যাবে যে, প্রায় ৯৫ জন মানুষের কোন না কোন কারণে মাথ্যা ব্যাথা করে থাকে-মাথা ব্যাথা হলে করণীয় ২০২৩

মাথা ব্যাথা হলে করণীয় কি?

মাথায় ব্যাথা হওয়ার কারণ হতে পারে ডিহাইড্রেশন বা হাইপোটেনশনের ফলে। তাই প্রথমেই আপনার পানিপূর্ণতা চেক করুন এবং পর্যপ্ত পানি পান করুন। মাথায় ব্যাথা থাকলে আপনার স্থানান্তর করার চেষ্টা করুন। নিজেকে একটি শান্ত এবং স্থির স্থানে বসানো এবং চোখটা বন্ধ করুন। মাথার ব্যাথার কারণ হতে পারে জন্মদাতা বা স্থানান্তরের কারণে জন্মদাতা শ্লেষম উপাদান সংকট হওয়া যা মাথার ব্যাথাকে উদ্দীপ্ত করতে পারে। মাথা মালিশ করে এই সমস্যার সামান্য আলোচনা করা যেতে পারে। আপনার মাথার ব্যাথার সমস্যার কারণ হতে পারে একটি সমস্যার উপর অবস্থান নেই যা মনে নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয়।

মাথা ব্যাথা কোন রোগের লক্ষণ কি কি?

মাথা ব্যাথা একটি সাধারণ সমস্যা হতে পারে এবং এর কারণ হতে পারে বিভিন্ন কারণ, যেমন জন্মদাতা শ্লেষম উপাদান সংকট, হাইপারটেনশন, ডিহাইড্রেশন, স্ট্রেস, চোখের সমস্যা, সাইনাস, অ্যালার্জি, ক্ষতিপূর্ণ মাথার আঘাত ইত্যাদি। মাথা ব্যাথার সাধারণ লক্ষণগুলি হল-

  • মাথায় ঝকঝকে ব্যাথা বা হালকা প্রতিবেদন।
  • মাথায় ভারী অবস্থান অনুভব করা।
  • চোখে অস্থিরতা বা ব্লার ভাব করা।
  • শ্বাসকষ্ট বা ব্যাথা অনুভব করা।
  • স্বাভাবিক কার্যকলাপ করা কষ্টকর হতে পারে।
  • ক্ষুধার্ত হওয়া বা অনিদ্রাপ্রবৃত্তি হওয়া।
  • জ্বর অথবা তাপমাত্রা বাড়া থাকলে।

মাথা ব্যাথা সম্পর্কিত অন্যান্য লক্ষণ ও সমস্যাগুলি থাকতে পারে যা নির্ভর করবে কারণে। তবে, এই লক্ষণগুলি থাকলে সেই কারণে মাথা ব্যাথা হতে পারে

ঘন ঘন মাথা ব্যাথার কারণ কি?

  • জন্মদাতা শ্লেষম উপাদান সংকট: এই কারণে মাথা ব্যাথা ঘন হতে পারে। এই সমস্যাটি আমাদের শরীরের রক্তের শ্লেষম উপাদানের মাত্রার বৃদ্ধির কারণে হয়।
  • হাইপারটেনশন: হাইপারটেনশন হল বৃদ্ধি উপাদানের কারণে রক্তচাপের বৃদ্ধি হয়। এর ফলে মাথা ব্যাথা হতে পারে।
  • ডিহাইড্রেশন: যখন আমরা পর্যাপ্ত পানি পান না করি তখন শরীর কম পরিমাণে পানি হিসেবে রাখতে হয়। এটি সমস্যার উৎস হতে পারে যা মাথা ব্যাথা উপজাত করতে পারে।
  • স্ট্রেস: স্ট্রেস বা চিন্তা মানসিক ও শারীরিক সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে এবং এর ফলে মাথা ব্যাথা হতে পারে।
  • চোখের সমস্যা: চোখের সমস্যা থাকলে সেই সমস্যার ফলে মাথা ব্যাথা উপজাত হতে পারে।

মাথা ব্যাথার ঔষধ কি? মাথা ব্যাথার জন্য কোন ঔষধ খাওয়া উচিত তা বিভিন্ন কারণে পরিবর্তিত হতে পারে এবং মাথা ব্যাথার কারণের উপর নির্ভর করে ওষুধের নাম বিভিন্ন হতে পারে। মাথা ব্যাথার কারণ হল সাধারণ ঠান্ডা বা জ্বরের কারণে হলে, পরামর্শ দেওয়া হয় নিম্নলিখিত ঔষধগুলি ব্যবহার করা।

  • প্যারাসিটামল (Paracetamol): মাথা ব্যাথার সাধারণ উপচার হিসেবে প্যারাসিটামল ব্যবহার করা হয়। এটি তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করে এবং মাথার ব্যাথা কমাতে সাহায্য করে।
  • আইবুপ্রোফেন (Ibuprofen): আইবুপ্রোফেন হল মাথা ব্যাথা এবং মাংশপেশী ব্যাথা কমাতে সাহায্য করে এবং মাথার ক্ষেত্রে সক্ষম হয় জ্বরের উপচারেও।
  • এসপিরিন (Aspirin): এসপিরিন হল একটি প্রসিদ্ধ ওষুধ যা মাথা ব্যাথার উপচারে ব্যবহার করা হয়। এটি তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রন করে থাকে।

মাথার পিছনে ব্যথা হওয়ার কারণ কি?

মাথার পিছনে ব্যথা হওয়ার কারণ বিভিন্ন হতে পারে যেমন-কম্পনের মাধ্যমে মাথার পিছনে ব্যথা হতে পারে। যেমন- দীর্ঘস্থায়ী গাড়ির ভ্রমণ বা এলাকায় ঝাঁপ লাগানো এলাকায় যাওয়া ইত্যাদি। উঁচু পিলো সংক্রমণ হল একটি ঝুঁকিপূর্ণ সমস্যা যা মাথা পিছনে ব্যথা সহ অন্যান্য লক্ষণ সঙ্গে আসে। মানসিক চাপ এবং কল্পনামূলক সমস্যার কারণেও মাথা পিছনে ব্যথা হতে পারে। মাথা ঝাঁকানো অথবা খুব দুরভাগ্যপূর্ণ ভাবে চোখ মুখ বা কান টেনে ধরা হলে মাথা পিছনে ব্যথা হতে পারে। মাথা পিছনে ব্যথা হলে, আপনাকে কিছু করনীয় হতে পারে যেমন যথাসম্ভব আরাম করতে হবে, স্থান পরিবর্তন কর

মাথার তালুতে ব্যথা কারণ কি?

১। টেনশন এবং মানসিক চাপ: মানসিক চাপ, টেনশন, দৈহিক চাপ এবং চিন্তা প্রকাশের সমস্যার কারণে মাথার তালুতে ব্যথা হতে পারে।

২। কল্পনামূলক সমস্যা: কল্পনামূলক সমস্যার কারণে ও মাথার তালুতে ব্যথা হতে পারে।

৩। এলার্জি বা উদ্বেগ: কিছু খাবার, জ্বালানি এবং উদ্বেগের কারণেও মাথার তালুতে ব্যথা হতে পারে।

৪। দৈহিক চাপ বা সমস্যা: দৈহিক চাপ, স্পাইনাল স্টেনোসিস, সাইনাস এবং একটি গোলাকার বা উপাংগ গোলাকার প্রতিষ্ঠান বা গাইড ব্লকের কারণে মাথার তালুতে ব্যথা হতে পারে।

মাথার তালুতে ব্যথা হলে আপনাকে একটি ডাক্তারের সাথে পর পর আলাপ করে ঔষুধ সেবন ও পরামর্শ নিবেন।

মাথা ব্যাথার ঘরোয়া চিকিৎসা কি? মাথা ব্যাথা একটি সাধারণ সমস্যা যা মানুষের দিনমণি জীবনে সচরাচর ঘটে। মাথা ব্যাথার কারণ ভিন্ন ভিন্ন হতে পারে, যেমন মানসিক চাপ, সমস্যার মুখে মুখ হওয়া, দুষ্ট খাবার খেয়ে পেট ব্যাথা এবং একটি সাধারণ রক্তচাপ বা উচ্চ রক্তচাপ।

মাথা ব্যাথা কখনওই উচিত না যে আপনি একটি ডাক্তারের সাহায্য না নিন। আপনি কিছু সাধারণ চিকিৎসা পরীক্ষা করতে পারেন যা সাধারণত মাথা ব্যাথাকে হ্রাস করতে সহায়তা করবে।

জনপ্রিয় পেইনরিলিভার (Pain relievers) বা এসপিরিন (Aspirin) গ্রহণ করা। সেখানে যদি আপনি একটি উচ্চ রক্তচাপ বা জন্তু নিরাপত্তা সম্পর্কে চিন্তিত হন, তবে আপনি প্রথমে একজন চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ নেওয়া উচিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *