দৈর্ঘ্য-প্রস্থ ফুট দিয়ে শতাংশ বের করার নিয়ম । ১ শতক = কত স্কয়ার ফুট?

লাখ লাখ টাকা দিয়ে বাড়ি তৈরি ক্ষেত্রে যে বিষয়টি আমরা অবজ্ঞা করে থাকি তা হচ্ছে আর্কিটেক দিয়ে ডিজাইন করে নেওয়া – দৈর্ঘ্য-প্রস্থ স্কয়ার ফুট দিয়ে শতাংশ বের করার নিয়ম

১ শতাংশ হতে কত বর্গফুট বা স্কয়ার ফুট জায়গা লাগে? – জমি বা জায়গা মাপার মুল একক হল লিংক।১০০০ বর্গ লিংক সমান ১ শতাংশ। যাকে ফুটে কনভার্ট করলে ৪৩৫.৬০ বর্গ ফুট হয়। তাই বলা যায় ৪৩৫.৬০ স্কয়ার বা বর্গফুটে এক শতাংশ।

কিভাবে বাড়ি নির্মাণ করবেন? প্রথমে একজন আর্কিটেক্ট খুজে বের করবেন। আপনার চাহিদা , সীমাবদ্ধতা , স্বপ্ন তাকে খুলে বলবেন। বাড়ি ডিজাইনের সুনির্দিষ্ট আইনকানুন আছে। ডিজাইন করে সেটা রাজউক / পৌরসভা / ইউনিয়ন পরিষদ থেকে নির্মানের ছাড়পত্র নিতে হয়। আর্কিটেক্ট আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী রুম লে-আউট , প্ল্যান, থ্রিডি ভিউ , অন্যান্য ডিটেইল আর্কিটেকচারাল ডিজাইন করে দিবেন।

আর্কিটেক্ট তার সাথে প্রজেক্ট পার্টনারশিপ এ থাকা সিভিল ইঞ্জিনিয়ার , ইলেক্ট্রিক্যাল , মেকানিকাল , প্লাম্বিং ইঞ্জিনিয়ার এর মাধ্যমে কন্সট্রাকশন এর জন্য প্রয়োজনীয় ড্রইং এর ব্যাবস্থা করে দিবেন। ইঞ্জিনিয়ার প্রজেক্টের কস্ট এস্টিমেশন, ম্যাটেরিয়াল এর পরিমান নির্ধারণ করবেন। আর্কিটেক্ট /ইঞ্জিনিয়ার আপনার বাড়িটি নির্মানের জন্য অভিজ্ঞ কন্ট্রাক্টর নিয়োগ দিবেন, বিল ঠিকঠাক আছে কিনা চেক করবেন।

কন্সট্রাকশন এর সময় আর্কিটেক্ট /ইঞ্জিনিয়ার নিয়মিত সাইট ভিজিট করবেন অথবা ফুলটাইম সাইট ইঞ্জিনিয়ার এর মাধ্যমে নির্মানের ভুল ত্রুটি , কোয়ালিটি চেক করবেন। একটা বাড়ি নির্মানের অনেক গুলা ধাপ। অনেকগুলা আইটেম। পাইলিং, ফাউন্ডেশন , রডের কাজ, শাটারিং, বীম কলাম, ছাদ ঢালাই, ওয়ালের গাথনি, প্লাস্টার, টাইলস, সুয়ারেজ -ড্রেইনেজ , ইলেক্ট্রিক্যাল -প্লাম্বিং ওয়ার্ক, গ্লাস -গ্রীল ওয়ার্ক , দরজা জানালা, পেইন্টিং-ফিনিশিং, লাইটিং -এসি, ইন্টেরিয়রের কাজ ও অনেক। প্রত্যেকটা কাজের জন্য আলাদা আলাদা পেশার মানুষ কাজ করে।

এলাকার মিস্ত্রি দিয়ে কাজ করানো কতটা যুক্তিসংগত? অনেক গুলা কাজের জন্য আলাদা আলাদা পেশাদার কাজের মধ্যে সময়, শিডিউল, বাজেট সমন্বয় করার কাজটাও পেশাদার লোক দিয়ে করাইতে হয়। ইহাকে প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট /কন্সট্রাকশন ম্যানেজমেন্ট বলে। ইঞ্জিনিয়ার আপনার হয়ে এই কাজ গুলি করে দিবে। আমি বুঝিনা একজন ক্লায়েন্ট কিভাবে পেশাদার পরামর্শক নিয়োগ ছাড়াই মিস্ত্রীর ভরসায় সারা জীবনের সঞ্চয় খরচ করে লোনের বোঝা মাথায় নিয়ে বাড়ির কাজে হাত দেন। এই কাজগুলি শরীর ও মনে অনেক স্ট্রেস ফেলে। ক্লায়েন্ট হয়ে নিজের হাতে এসব গুরুত্বপূর্ণ কাজ তুলে নেয়া মানে নিজের জীবনের আয়ু কমিয়ে ফেলা। বর্তমানে জমির দাম অনেক, বাড়ি নির্মানও ব্যায়বহুল। ইমারত নির্মানের আগে বুঝে শুনে উপযুক্ত পেশাদার পরামর্শক /ডিজাইনার/ ইঞ্জিনিয়ার নিয়োগ করুন। আপ্নার ইনভেস্টমেন্ট কে নিরাপদ রাখুন, নিজেও নির্ভাবনায় নিরাপদে থাকুন।

প্লট বা বাড়ি নকশা অনুসারে জায়গা বের করার নিয়ম / 435.6 বর্গফুট ১ শতাংশ জায়গা হয়

১কাঠা সমান ৭২০ বর্গফুট এবং ২০ কাঠা ১বিঘা তাহলে ৭২০ বর্গফুট কে ২০ দ্বারা গুণ করলে ১৪৪০০ বর্গফুট হয়।আবার ৩৩ শতাংশ সমান ১ বিঘা।তাহলে ১৪৪০০ বর্গফুট কে ৩৩ শতাংশ দ্বারা ভাগ করলে ৪৩৬.৩৬ বর্গফুট পাওয়া যায়।অর্থাৎ ১শতাংশ সমান ৪৩৬.৩৬ বর্গফুট।

দৈর্ঘ্য-প্রস্থ স্কয়ার ফুট দিয়ে শতাংশ বের করার নিয়ম । ১ শতক = কত স্কয়ার ফুট?

Caption: Check your Home Map or design by Lenth and wide devide by 435.6

বাড়ি ডিজাইন দিয়ে আমরা জমির পরিমান বের করবো । দৈর্ঘ ৩৮ ফুট প্রস্থ ৩১.২ ফুট চলুন জমির শতাংশ বের করি

তাহলে সূত্র অনুসারে ৩৮*৩১.২ /৪৩৫.৬ = ২.৭২ শতাংশ

জমি পরিমাপের সূত্র কি?

১ কাঠা সমান ৭২০ বর্গফুট এবং ২০ কাঠা ১বিঘা তাহলে ৭২০ বর্গফুট কে ২০ দ্বারা গুণ করলে ১৪৪০০ বর্গফুট হয়। আবার ৩৩ শতাংশ সমান ১ বিঘা। তাহলে ১৪৪০০ বর্গফুট কে ৩৩ শতাংশ দ্বারা ভাগ করলে ৪৩৬.৩৬ বর্গফুট পাওয়া যায়। অর্থাৎ ১শতাংশ সমান ৪৩৬.৩৬ বর্গফুট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *