ড্রপশিপিং বিজনেস ২০২৩ । পুঁজি ছাড়া বুদ্ধি খাটিয়ে কোথায় কিভাবে শুরু করবেন?

ড্রপশিপিং বিজনেস করতে আপনার একটি ফেসবুক পেইজ লাগবে আর লাগবে সেলিং স্কিল– একটি ওয়েবসাইট থাকলে অর্গানিক কাস্টমার পাবেন – ড্রপশিপিং বিজনেস ২০২৩

ড্রপশিপিং হলো এমন একটি ব্যবসায়িক পদ্ধতি যেখানে ব্যবসায়ীরা প্রোডাক্ট বা সেবা বিপণন করতে হয় না, তবে তারা প্রোডাক্ট বা সেবা কেউ অন্য ব্যবসায়ী বা সরবরাহকারী থেকে স্বতস্ফূর্তভাবে কিনতে পারে। ড্রপশিপিং একটি মধ্যমেবস্তুত ব্যবসায় পদ্ধতি, যেখানে ব্যবসায়ী নিজেদের প্রোডাক্ট স্টক ধারণা করে না, সেবা সরবরাহ করে না, বা প্রোডাক্ট নির্মাণ করে না। বরুণ ক্ষেত্রে, ড্রপশিপার (ব্যবসায়ী) কেবল ক্রেতাদের অর্ডার প্রক্রিয়া করে এবং আবশ্যক সময়ে বা আবশ্যকতা মুয়ায়ান করে সামগ্রিক প্রদান করে। ড্রপশিপিং প্রথমে একটি অনলাইন বা ব্রিক-এন্ড-মোর্টার দোকানের মাধ্যমে সরবরাহকারী বা উপাদানের মালিকের সাথে একটি মৌলিক চুক্তি স্থাপন করে শুরু হয়।

ড্রপশিপিং কি ফ্রিল্যান্সিং? না। আপনি যদি কোন বিষয় উপর দক্ষ হয়ে থাকেন সেক্ষেত্রে বিভিন্ন মার্কেটপ্লেস থেকে কাজ নিয়েও উপার্জন করতে পারেন। যেমন Upwork, Fiverr, PeoplePerHour এর মাধ্যমে কাজ নিয়েও উপার্জন করতে পারবেন। আর যদি আপনার কোন বিষয় উপর দক্ষতা না থাকে, সেক্ষেত্রে সব থেকে ভাল উপায় হল ড্রপশিপিং বিজিনেস। নতুন অবস্থায় ড্রপশিপিং এর মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই অল্প পুঁজিতেই একটা স্মার্ট ইনকাম করতে পারবেন। তবেঁ সেক্ষেত্রে আপনাকে প্রাথমিক পর্যায় কিছু বিনিয়োগ করতে হবে।

ড্রপশিপিং বিজনেস এ কেমন মূলধন লাগে? কোন মূলধনই লাগে না। লাগে ইকুপমেন্ট এবং সেলিং ক্যাপাসিটি। কোন একজন সাপ্লায়ারের (supplier) কাছ থেকে প্রডাক্ট ক্রয় করা ছাড়াই অনলাইন এ e-Commerce স্টোরে সংযুক্ত করার মাধ্যমে কাস্টমারদের কাছে প্রডাক্ট বিক্রি করাকে বুজায়। এর মানে হল, কোন একজন সাপ্লায়ারের প্রডাক্ট আপনার e-Commerce স্টোরে সংযুক্ত করলেন, এরপর কাস্টমার আপনার স্টোর থেকে সেই প্রোডাক্টটি কিনতে অর্ডার করল এবার আপনি সাপ্লায়ার কে অর্ডার কপিটা দেখালেন, তখন সাপ্লায়ার সরাসরি সেই প্রডাক্টটি কাস্টমারের কাছ ডেলিভারি করে দিবে। অর্থাৎ এক্ষেত্রে প্রডাক্ট উৎপাদন, প্যাকেজিং, এন্ড ডেলিভারি জন্য আপনাকে কোন কিছুই করতে হবেনা। সব কাজ আপনার সাপ্লায়ার- ই ব্যবস্থা করে দিবে। আপনি শুধু কাস্টমারদের কাছে প্রডাক্ট বিক্রি করবেন। আর বিক্রি হবার পর সাপ্লায়ারকে তার প্রডাক্ট এর দাম পরিশোধ করে দিবেন।

বাংলাদেশে কি ড্রপ শিপিং কোম্পানি আছে?/ বিডিশপ ছাড়া আর কোন বাংলাদেশী কোম্পানি নাই

তবে দেশী শপে খুব একটা লাভ না হলেও আপনি অল্প কিছু টাকা বিনিয়োগ করে চেষ্টা করে দেখতে পারেন। আপনার সেলিং স্কিল থাকলে যে কোনভাবে সেল বা বিক্রি নিয়ে আসতে পারবেন।

ড্রপশিপিং বিজনেস ২০২৩ । পুঁজি ছাড়া বুদ্ধি খাটিয়ে কোথায় কিভাবে শুরু করবেন?

Caption: Sabit Store

Dropshipping website list 2023 । আন্তর্জাতিক যে সকল মার্কেট হতে আপনি ড্রপশিপিং পার্টনারশীপ গ্রহণ করতে পারেন

  1. AliExpress
  2. Alibaba
  3. SaleHoo
  4. Worldwide Brands
  5. Doba
  6. Sunrise Wholesale
  7. Wholesale2b
  8. Megagoods
  9. Wholesale Central
  10. Modalyst
  11. Spocket
  12. CJDropshipping
  13. CROV

ড্রপশিপিং ব্যবসায় লাভ কেমন হয়?

সরাসরি বা ফিজিক্যাল স্টক বিজনেস সব থেকে বেশি লাভ, ড্রপশিপিং এ এতবেশি না হলেও খারাপ মুনাফা হয় না। মনে করেন সাপ্লায়ারের একটি প্যান্ট এর দাম ৪০০ টাকা যা আপনি কাসটমারের কাছে ৫০০ টাকা দিয়ে বিক্রি করলে, এক্ষেত্রে কাস্টমারের কাছে প্যান্ট বিক্রি করার পর সাপ্লায়ারকে তাঁর প্যান্ট এর মূল্য ৪০০ টাকা পরিশোধ করে দিতে হবে। তাহলে আপনার লাভ থাকতেছে ১০০ টাকা অর্থাৎ কোন রকম ইনভেস্ট ছাড়া আয় ১০০ টাকা। ড্রপ শিপিং এ যে মার্কেট প্রাইজ বা সেলিং প্রাইজ পাওয়া যায় তা মার্কেটে যে কোন সেলারের থেকে প্রতিযোগীতাপূর্ণ দর।

সহজ কিস্তিতে লোন ২০২৩ । ১ লক্ষ টাকা লোন নিতে চাই BKash Personal Retail Account login । বিকাশ পার্সোনাল রিটেইল একাউন্ট খোলার নিয়ম Foreign Recruiting Agencies Tangail । টাঙ্গাইল বিদেশ যাওয়ার এজেন্সি তালিকা দেখুন

US Visa Status Check । দেশে বসে কি আমেরিকান ভিসা চেক করা যায়?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *