অনলাইন সার্টিফিকেট সিস্টেম ২০২৪ । মাত্র ২৬ টাকায় যে কোন প্রত্যয়নপত্র সংগ্রহ করুন

অনলাইন সার্টিফিকেট সিস্টেমে আপনি প্রথমে মোবাইল নম্বর এবং এনআইডি দিয়ে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করতে হবে- প্রোফাইল আপডেট করে নিতে হবে- মাত্র ২৬ টাকা ফি পরিশোধ করে মুহুর্তেই আবেদন সম্পন্ন করা যায় –Prottoyon gov bd

প্রত্যয়ন ওয়েবসাইটের কাজ কি?–এই ওয়েব পোর্টালটি সকল প্রকার সনদপত্র সংক্রান্ত সেবা সমূহ জনগণের মাঝে পৌঁছে দেওয়ার উদ্দেশ্যে তৈরি করা হয়েছে। এটি বাংলাদেশ সরকারের পোর্টাল এর অংশ হিসেবে সরকারি সেবাসমূহ প্রদান করার লক্ষ্য নিয়ে চালু করা হয়েছে। সকল সরকারি ওয়েবসাইট এবং সেগুলোর তথ্যগুলোকে একটিমাত্র ওয়েব পোর্টালে সমন্বিত করার লক্ষ্যে এটি একটি অন্যতম ই-গভর্নেন্স উদ্যোগ। বাংলাদেশ সরকারের ওয়েব পোর্টালের মাধ্যমেই প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় বাংলাদেশ সরকারের সেবাসমূহের সবরকম তথ্য জনগণের কাছে পৌঁছাতে চায়। এরই ধরাবাহিকাতায় বাংলাদেশ সরকারের ওয়েব পোর্টালের অংশ হিসেবে অনলাইন কাউন্সিলর সার্টিফিকেট এর ওয়েবপোর্টালকে নতুন আঙ্গিকে সাজিয়েছে।

প্রত্যয়ন পত্র কি অনলাইনেই ডাউনলোড করা যাবে? না। আপনি অনলাইনে ২৬ টাকা ফি পরিশোধ করতে আবেদন করবেন। ইংরেজী সহ চাইলে ৫৪ টাকা ফি পরিশোধ করে আবেদন সম্পন্ন করবেন। সংশ্লিষ্ট বা আপনার ইউনিয়ন পরিষদ হতে আপনি বিনামূল্যে প্রিন্ট কপি সংগ্রহ করবেন এবং ইউপি চেয়ারম্যান দিয়ে স্বাক্ষর করিয়ে নিলেই কাজ শেষ। কিউআর কোড যুক্ত থাকায় এটি যাচাই করা যাবে এবং অনলাইনে আপলাড করা হলে যে কোন স্থান হতে ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবেন। এটি সংগ্রহের জন্য অবশ্যই উদোক্তার নিকট যাবেন না। যোগাযোগের নম্বরে কল করে বা ইউনিয়ন সচিবের সাথে যোগাযোগ করে সংগ্রহ করবেন।

নাগরিকত্ব সনদ কি? নাগরিকত্ব সনদ হলো একটি আইনি নথি যা প্রমাণ করে যে একজন ব্যক্তি কোন নির্দিষ্ট দেশের নাগরিক। নাগরিকত্ব সনদ একজন ব্যক্তিকে তার দেশের নাগরিক হিসেবে প্রদত্ত সকল অধিকার ভোগ করার সুযোগ করে দেয়। অনেক দেশে ভ্রমণের জন্য নাগরিকত্ব সনদ প্রয়োজন। কিছু কাজের জন্য নাগরিকত্ব সনদ প্রয়োজন। কিছু দেশে সম্পত্তি ক্রয়ের জন্য নাগরিকত্ব সনদ প্রয়োজন। নাগরিকত্ব সনদ থাকলে একজন ব্যক্তি নির্বাচনে ভোট দিতে পারে।

অনলাইনে মোবাইল বা কম্পিউটার হতে আবেদন করতে পারবেন/যেতেহু অনলাইনেই ফি পরিশোধিত সেহেতু আপনি বিনামূল্যে ইউপি হতে সংগ্রহ করবেন

স্বাক্ষরসহ অনলাইনে ডাউনলোড করা যায় না? না। আবেদনের পর আপনার আবেদন অনুমোদিত হলে মোবাইলে মেসেজ আসবে এবং আপনি তা ইউপি বা পৌরসভা হতে সংগ্রহ করবেন।

Caption: prottoyon.gov.bd

অনলাইন সার্টিফিকেট সিস্টেম ২০২৪ । প্রোফাইল রেডি থাকলে মুহুর্তেই আপনি সনদের জন্য আবেদন করতে পারবেন। অটো আপনার সার্টিফিকেট রেডি হবে

  1. হোল্ডিং ট্যাক্স
  2. ক্ষমতা অর্পণ প্রত্যয়ন
  3. পারিবারিক সনদ
  4. উত্তরাধিকার সনদ
  5. ওয়ারিশ সনদ
  6. মৃত্যু সনদ
  7. নাগরিকত্ব সনদ
  8. জাতীয়তা সনদ
  9. পুনঃবিবাহ সনদ
  10. ভূমিহীন সনদ
  11. নতুন ভোটার প্রত্যয়ন
  12. বিধবা প্রত্যয়ন
  13. অভিভাবক সম্মতি সনদ
  14. সম্প্রদায় সনদ
  15. অবিবাহিত সনদ
  16. কৃষি প্রত্যয়ন
  17. মুক্তিযোদ্ধা প্রত্যয়ন
  18. বার্ষিক আয়ের সনদ
  19. এতিম সনদ
  20. বিবাহিত সনদ
  21. মাসিক আয়ের সনদ
  22. ভোটার এলাকা স্থানান্তর প্রত্যয়ন
  23. অবকাঠামো নির্মাণের অনুমতি সনদ
  24. অনাপত্তি সনদ
  25. আর্থিক অস্বচ্ছলতার সনদ
  26. নিঃসন্তান প্রত্যয়ন
  27. প্রতিবন্ধী সনদ
  28. জাতীয় পরিচয় তথ্য সংশোধন প্রত্যয়ন
  29. চারিত্রিক সনদ
  30. একই ব্যক্তির প্রত্যয়ন
  31. উপজাতি সনদ
  32. পুনঃবিবাহ না হওয়ার প্রত্যয়ন
  33. ট্রেড লাইসেন্স
  34. প্রিমিসেস লাইসেন্স
  35. স্থায়ী বাসিন্দা সনদ
  36. বেকারত্ব সনদ
  37. বিবিধ সনদ

উত্তরাধিকার সনদ কি?

উত্তরাধিকার সনদ হলো একটি আইনি নথি যা নির্ধারণ করে যে কোন ব্যক্তি বা ব্যক্তিরা মৃত ব্যক্তির সম্পত্তির উত্তরাধিকারী হবে। মৃত ব্যক্তিকে মরহুম বা মৃত বলা হয়। মৃত ব্যক্তির সম্পত্তি বন্টনের জন্য মৃত ব্যক্তির মৃত্যুর পর, তাঁর সম্পত্তি তাঁর উত্তরাধিকারীদের মধ্যে বন্টন করতে হয়। উত্তরাধিকার সনদ নির্ধারণ করে কে কতটা সম্পত্তি পাবে। আইনি জটিলতা এড়াতে উত্তরাধিকার সনদ না থাকলে, মৃত ব্যক্তির সম্পত্তি নিয়ে আইনি জটিলতা দেখা দিতে পারে। উত্তরাধিকার সনদ থাকলে, সকলের অধিকার স্পষ্ট থাকে এবং আইনি জটিলতা এড়ানো যায়। সরকারি সেবা পেতে মৃত ব্যক্তির নামে থাকা কিছু সরকারি সেবা, যেমন: পেনশন, জমি, বাড়ি ইত্যাদি, পেতে উত্তরাধিকার সনদ প্রয়োজন। বাংলাদেশে, উত্তরাধিকার সনদ অনলাইনে এবং অফলাইনে দুভাবেই পাওয়া যায়। জীবিত ব্যক্তি কখনও উত্তরাধিকার সনদ হয় না।

জাতীয় পরিচিতি বিবরণ ডাউনলোড । ২১ টাকা ফি দিয়ে অনলাইনে তথ্য যাচাই করা যাবে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *